‘ফাইনালি’ মিলন হবে সূর্য-দীপার! সামাজিক মাধ্যমে ইঙ্গিত দিলেন খোদ লাবন্য সেনগুপ্ত!

“কবে বুঝবে সূর্য তার ভুল?” “কবে সঠিক DNA রিপোর্ট সামনে আসবে?” “কবে ধরা পড়বে মিশকার ষড়যন্ত্র?” ইত্যাদি প্রভৃতি নানারকম চিন্তায় ভাবিত হয়েছিলেন একদল বাঙালি দর্শক। এই ধরনের প্রশ্নগুলিকেও ছাপিয়ে গিয়ে একটি প্রশ্নই ঘুরপাক খাচ্ছিল সর্বত্র। “কবে মিল হবে সূর্য- দীপার?” এই প্রশ্নের উত্তর পাওয়া যাবে শীঘ্রই। সদ্য প্রকাশে এসেছে ‘অনুরাগের ছোঁয়া’ ধারাবাহিকের নতুন প্রোমো। সেই প্রোমোটি সামাজিক মাধ্যমে ভাগ করে নিয়েছেন খোদ লাবণ্য সেনগুপ্ত, অর্থাৎ অভিনেত্রী রূপাঞ্জনা মিত্র।

সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত প্রোমোয় দেখা যাচ্ছে, সূর্য হন্যে হয়ে অপেক্ষা করছে DNA টেস্টের রিপোর্ট হাতে পাওয়ার। রিপোর্ট হাতে পেতেই সে জানতে পারে, সোনা এবং রূপার বাবা কবির ময়, বরং সূর্যই। ভুল ভাঙে তাঁর। তৎক্ষণাৎ দৌড়ে যায় অসুস্থ দীপার কাছে। বারংবর নিজের ভুলের জন্য এবং দীপাকে করা অপমানের জন্য ক্ষমা চায় সে। দীপা ‘ডাক্তারবাবু’ কে তাঁর ভুল বুঝতে দেখে খুশি হলেও, ক্ষমা করার প্রশ্নের উত্তর দেয় না। নির্লিপ্ত থেকে যায় দীর্ঘদিন ধরে সংগ্রাম করতে থাকা এক মা, যিনি শুধু স্ত্রীয়ের পরিচয় নয়, পাননি তাঁর সন্তানদের পিতৃত্বের পরিচয়ও।

প্রসঙ্গত সূর্যর ‘বেস্ট ফ্রেন্ড’ মিশকার চক্রান্তে বারবার প্রমাণিত হয় সূর্য কোনওদিন পিতৃত্বের স্বাদ অর্জন করতে পারবে না। কিন্তু দীপা যখন গর্ভবতী হয়, সেই সময়ে সূর্য তাঁকে সন্দেহ করে। যে সন্দেহ কবিরের নাম করে আরও বেশি উস্কে দেয় মিশকা। এর ফলে তৈরি হয় এক গভীর এবং দীর্ঘ ভুল বোঝাবুঝি। নিজের সন্তানদেরও সূর্য অস্বীকার করে তাঁর ভ্রান্ত ধারনাবশত। সূর্য এবং দীপার মানসিক দূরত্ব নিয়েই এগিয়ে যায় ধারাবাহিকের স্রোত। কিন্তু এমন পর্যায় পৌঁছেছে এই কাহিনীর প্রবাহ, দর্শকও রীতিমত অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছেন। যেন তেন প্রকারেন তাঁরা মিল চান সূর্য এবং দীপার। তাই সদ্য মুক্তিপ্রাপ্ত প্রোমোটি দেখে তাঁরা যেমন খুশি হয়েছেন, অনেকে ভাবছেনও যে এত সহজে সব কিছু হওয়ার নয়। নিশ্চয়ই আগের মতই এই ঘটনাও দীপার কল্পনা। তবে এখন সময়ের অপেক্ষা। দেখা যাক, সবুরে মেওয়া ফলে কি না!

Scroll to Top